ধাঁ-ধাঁ

ঘুম না-আসা রোগ

প্রশ্ন: কখন বুঝবেন, আপনার ইনসমনিয়া (ঘুম না-আসা রোগ) গুরুতর হয়ে উঠেছে?

উত্তর: যখন অফিসের মিটিংয়ে বসেও আপনার ঘুম পাবে না!

 

প্রশ্নের উত্তর

প্রশ্ন: কোন প্রশ্নের উত্তরে কখনো ‘হ্যাঁ’ বলা যায় না?

উত্তর: তুমি কী ঘুমাচ্ছ?

 

কলার খোসা

চলার পথে কলার খোসা পড়ে থাকতে দেখলে সরদারজি মনে মনে কী ভাবেন?

উত্তর: ইশ্! আজকে আবার আছাড় খেতে হবে!

 

যুদ্ধাস্ত্র

একটি যুদ্ধে কয়টি অস্ত্র লাগে?

উত্তর: দুটি। একটি দিয়ে শত্রুপক্ষকে গুলি করা হয় এবং অন্যটি শত্রুপক্ষের কাছে বিক্রি করা হয়। যেন বিপক্ষ দল পাল্টা আঘাত করতে পারে।

 

শেয়ারবাজার

শেয়ারবাজার থেকে কীভাবে এক লাখ টাকা তুলে আনা যায়?

উত্তর: সহজ! দুই লাখ টাকা বিনিয়োগ করুন!

 

সন্ধ্যার সংবাদ

‘সন্ধ্যার সংবাদ’ কাকে বলে?

উত্তর: যে সংবাদের শুরুতেই আপনাকে বলা হয়, ‘শুভ সন্ধ্যা’। এরপর একে একে বর্ণনা করা হয়, কেন প্রথম বাক্যটা ভুল ছিল…!

ডিম ভাঙল না

মেঝের ওপর একটা ডিম পড়ল, অথচ ভাঙল না। কীভাবে সম্ভব?

উত্তর: মেঝেটা যথেষ্ট শক্ত। তাই ডিমের আঘাতে ভাঙেনি!

পাতলা বই

পৃথিবীর সবচেয়ে পাতলা বইটির নাম কী?

উত্তর: নারী সম্পর্কে পুরুষ যা জানেন।

বড় হাত

যদি আপনার এক হাতে তিনটি আপেল, দুটি কমলা এবং অন্য হাতে দুটি নাশপাতি, চারটি কমলা থাকে, আপনার কী আছে?

উত্তর: অনেক বড় হাত।

 

অপর পৃষ্ঠায় দেখুন

সরদারজিকে কীভাবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ব্যস্ত রাখা যায়?

উত্তর: সরদারজিকে একটি কাগজ দিন। যার উভয় দিকে লেখা আছে, ‘অপর পৃষ্ঠায় দেখুন!’

 

গরিলার নাকের ফুটো

গরিলার নাকের ফুটো এত বড় কেন?

উত্তর: কারণ, তার নাক খোঁচানোর মতো যথেষ্ট মোটা আঙুল আছে!

 

দেয়াল তৈরি করতে সময়

আটজন শক্ত-সামর্থ্য মানুষের একটি ১০ ফুট উঁচু দেয়াল তৈরি করতে সময় লাগল চার ঘণ্টা। তাহলে চারজন শুকনা-পটকা মানুষের ওই দেয়াল তৈরি করতে কত সময় লাগবে?

উত্তর: কোনো সময়ই লাগবে না! কারণ, আটজন শক্ত-সামর্থ্য মানুষ ইতিমধ্যেই দেয়াল তৈরি করে ফেলেছে।

কঠিন প্রশ্ন

কোন প্রশ্নটির উত্তর অধিকাংশ তরুণীই দিতে পারেন না?

উত্তর: এক্সকিউজ মি, আপনার ফোন নম্বরটা কত?

না ঘুমিয়ে

কীভাবে একটা মানুষ ১০ দিন না ঘুমিয়ে থাকতে পারে?

উত্তর: রাতে ঘুমাবে!

লোহার মতো শক্ত কিন্তু গর্তে ভর্তি

: লোহার মতো শক্ত কিন্তু গর্তে ভর্তি জিনিসটা কী?
: শিকল।

মাথায় কত প্রশ্ন আসে – আগস্ট ০২, ২০১০

 বাসায় ফ্রিজ না থাকলে মাছ-মাংস কোথায় রাখা উচিত?
: উত্তর মেরুতে গিয়ে রেখে আসুন। দরকার পড়লেই নিয়ে আসবেন।

 স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক ভালো থাকে কখন?
: যখন স্বামী শোনে না স্ত্রী কী বলে এবং স্ত্রী দেখে না স্বামী কী করে।

 মেয়েদের ওজন কমানোর সহজ উপায় কী?
: প্রসাধনী ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে।

 শীতপ্রধান দেশের পাখিরা শীতকালে দক্ষিণে উড়ে যায় কেন?
: হেঁটে গেলে বহুদিন লাগবে বলে।

 মেয়েরা আমার দিকে তাকিয়েও দেখে না। তাদের দৃষ্টি আকর্ষণের উপায় কী?
: গ্যাস-মুখোশ পরে রাস্তায় বের হোন।

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, আগস্ট ০২, ২০১০

মাথায় কত প্রশ্ন আসে – জুলাই ১৯, ২০১০

 রবিনহুড ধনীদের সম্পদ লুট করত কেন?
: গরিবদের ঘরে লুট করার কিছু ছিল না বলে।

 মুদ্রাস্ফীতি কী?
: যখন আপনার পকেট টাকায় স্ফীত, কিন্তু আপনি ধনী নন।

 বিয়ের সঙ্গে লটারির তুলনা করা যায় কি?
: অবশ্যই না। লটারিতে তবু একটা চান্স থাকে।

 তোতাপাখি এবং পত্রবাহক কবুতরের সংকর করলে কী হবে?
: এমন এক পাখি, যা চিঠি পৌঁছে দিতে গিয়ে বাড়ি খুঁজে না পেলে লোকজনকে জিজ্ঞেস করে নিতে পারবে।

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, জুলাই ১৯, ২০১০

মাথায় কত প্রশ্ন আসে – জুলাই ১২, ২০১০

 

ড্রাগস আমদানি নিষিদ্ধ কেন?
: অভ্যন্তরীণ উৎপাদনকারীদের স্বার্থ রক্ষার জন্য।

স্ত্রীর দিকে একেবারেই নজর না দিয়ে স্বামী যদি সারাক্ষণ টিভিতে ফুটবল দেখতে থাকে, সে ক্ষেত্রে স্বামীর মনোযোগ আকর্ষণের জন্য স্ত্রীর কী করা উচিত?
: স্বামীর প্রিয় দলের জার্সি পরে তার সামনে ঘোরাঘুরি করলে ফল হতে পারে।

মানুষ কি অ্যাপেনডিক্স ছাড়া বাঁচতে পারে?
: পারে, কিন্তু ডাক্তাররা পারে না।

মেয়েরা রহস্য উপন্যাস কম লেখে কেন?
: বইয়ের শেষ পর্যন্ত রহস্য চেপে রাখতে পারে না বলে।

প্রৌঢ়ত্বের সবচেয়ে বড় সমস্যা কী?
: তখন চাইলেও তরুণ বয়সের ভুলগুলো করার ক্ষমতা থাকে না।

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, জুলাই ১২, ২০১০

সাঁতার কাটলে চুল ভেজে না

: কোন সাঁতারু সাঁতার কাটলে চুল ভেজে না?
: টেকো সাতারু।

 

বিদ্যুৎ চমকালে লোক হাসে

: বিদ্যুৎ চমকালে কোনো কোনো লোক হাসে কেন?
: কারণ তারা ভাবে, এইমাত্র তাদের ছবি তোলা হলো।

বিভিন্ন ফ্লেভারের স্বাদ

মানুষের বিভিন্ন ধরনের রক্তের গ্রুপ হয় কেন?
: মশারা যাতে বিভিন্ন ফ্লেভারের স্বাদ গ্রহণ করতে পারে।

দাঁত থাকলেও

দাঁত থাকলেও খেতে পারে না কে?
: চিরুনি।

বউয়ের যত্ন নিন, নিলে কতটুকু নিচ্ছেন জানুন

এই লেখাটি যাদের বউ আছে তাদের জন্য। গোটা জগত্-সংসারে স্বামীদের সুখে থাকার জন্য একটাই নিয়ম—বউকে খুশি রাখুন। এমন কিছু করুন যাতে সে খুশি থাকে। আপনি তাকে কতটা খুশি রাখতে পেরেছেন জানতে নম্বর সংগ্রহ করুন। তার অপছন্দের কিছু করেছেন তো মাইনাস। আবার তার জন্য কিছু করেছেন, কিন্তু সেখানেও কোনো নম্বর পাবেন না, কারণ এটা নাকি আপনার করারই কথা ছিল। হতভাগা স্বামীদের কিছুই করার নেই, জগতের নিয়মটাই এমন নিষ্ঠুর। কীভাবে নম্বর পাবেন আর কীভাবে নম্বর হারাবেন, নিচে তা বিশদভাবে দেওয়া হলো। ওয়েবসাইট অবলম্বনে এই গবেষণাকর্মটির গবেষক তাওহিদ মিলটন।

 আপনি বিছানা তৈরি করেন এবং মশারি খাটান। (+১)
 বিছানা তৈরি করেছেন কিন্তু মশারি খাটাতে ভুলে যান। (০)
 তার জরুরি দরকার এমন কিছু কিনতে বাইরে যান। (+৫)
 যদি সেটা বৃষ্টির দিনে হয়। (+৮)
 ভুলে সেটা না কিনে যদি পেপার কিনে বাসায় ফেরেন। (-৫)
 রাতে আপনি যদি কোনো রহস্যজনক শব্দ পান এবং সেটা যদি কিছুই না হয়। (০)
 যদি একটা লম্বা লাঠি নিয়ে খুঁজতে বের হন। (+৮)
 কিন্তু শব্দটা যদি তার পোষা বিড়ালের কারণে হয়। (-১০)

 আপনি কোনো বিয়ের অনুষ্ঠানে পুরো সময় তার পাশে থাকেন। (০)
 তার পাশে কয়েক মিনিট থাকার পরই যদি উসখুস করতে থাকেন এবং পরে আপনার কোনো বন্ধুর সঙ্গে গল্প করে কাটান। (-২)
 সেখানে যদি বন্ধুর স্ত্রী থাকে। (-৫)
 স্ত্রীটি যদি সুন্দরী হয়। (-১০)

 তার জন্মদিনে সময়মতো উইশ করতে পেরেছেন কিন্তু খালি হাতে। (-২)
 জন্মদিনে একটা জিনিস উপহার দিয়েছেন কিন্তু তার অপছন্দের। (-১)
 জন্মদিনে যে জিনিসটা উপহার দিয়েছেন সেটা তার খুব পছন্দের। (+৫)
 কিন্তু আপনার খুব অপছন্দের। (+১০)
 তার পছন্দের জিনিসই উপহার দিয়েছেন কিন্তু সেটা সাংসারিক কাজে লাগবে। (-৫)

 বন্ধের দিন তাকে নিয়ে ঘুরতে গেছেন, সিনেমা দেখেছেন। (+১)
 ঘুরতে যাননি। (-৭)
 নিজে একা একা ঘুরে এসেছেন। (-১০)
 যে সিনেমাটি দেখেছেন সেটা তার পছন্দের ছিল। (+৪)
 যে সিনেমাটি দেখেছেন সেটা আপনার অপছন্দের ছিল। (+৮)
 সিনেমাটি আপনার পছন্দের ছিল। (-২)

 আপনি তাকে সাজার পর সুন্দর লাগছে বলেছেন। (+৫)
 বলেননি। (-৮)
 সে মোটা হয়ে যাচ্ছে বলেছেন। (-১০)
 আমাকে কি মোটা লাগছে এই প্রশ্নের উত্তর দিতে উসখুস করেছেন। (-৫)
 আপনি নিজের ভুঁড়ি কমানো নিয়ে কথা বললেন। (+৭)
 আপনি তাকে ব্যায়াম করতে বললেন। (-১০)

 আপনি তাকে সারপ্রাইজ দিলেন। (+২)
 সে আপনাকে সারপ্রাইজ দিল কিন্তু আপনি স্বাভাবিক ছিলেন। (-৯)
 তার প্রিয় খাবার যদি আপনি পছন্দ করেন। (+১)
 যদি অপছন্দ করেন। (-৪)
 আপনি যদি তাকে নিয়ে ভাবেন। (+১)
 আপনি যদি তাকে নিয়ে কিছু না ভাবেন। (-৬)
 আপনি যদি অন্য কিছু নিয়ে ভাবেন। (-৯)

 শ্বশুর-শাশুড়িকে পছন্দ করেন। (০)
 যদি অপছন্দ করেন। (-৬)
 সেই সঙ্গে যদি নিজের বাবা-মা ছাড়া কিছু না বোঝেন। (-১০)

 অফিস থেকে ঘণ্টায় ঘণ্টায় ফোন দেন। (০)
 ফোন দেন না। (-৫)
 অফিসে যদি মেয়ে কলিগ থাকে। (-৭)
 সে কলিগ যদি সুন্দরী হয় এবং তার কথা যদি বাসায় বলেন। (-১০)

 তার আগের প্রেম নিয়ে কিছু জিজ্ঞেস করেন না। (+৯)
 আপনার প্রেম নিয়ে কিছু বলেন না। (-৫)
 যদি বলেন আপনার আগে প্রেম ছিল। (-৮)
 যদি বলেন ছিল না। (-১০)
 সে কষ্ট পেলে আপনি কষ্ট পান। (+৪)
 কিন্তু সেটা যদি তার কারণে হয়। (-৫)
 আবার তার ব্যবহারে যদি কষ্ট না পেয়ে স্বাভাবিক থাকেন। (-৯)

 শ্যালিকা আছে। (-২)
 শ্যালিকা আপনার প্রশংসা করে। (-৪)
 আপনি শ্যালিকার প্রশংসা করেন। (-৬)
 শ্যালিকা প্রায়ই বাসায় আসে। (-৭)
 আপনিই তাকে আসতে বলেন। (-৮)
 শ্যালিকা আপনাকে পছন্দ করে না। (+৩)
 আপনি শ্যালিকাকে অপছন্দ করেন। (০)
 আপনি শ্যালিকাকে ভালোবাসেন। (-১)
 খুব ভালোবাসেন না। (-২)
 শ্যালিকা আপনাকে ভালোবাসে কি না জানতে চাইলেন। (-৯)

 সে তার একটা সমস্যা নিয়ে কথা বলার সময় আপনি সেটা মনোযোগ দিয়ে শুনলেন এবং যখন যে রকম এক্সপ্রেশন দেওয়া দরকার সেটা দিলেন। (০)
 তার কথা আপনি বিনা প্রতিবাদে মনোযোগ দিয়ে আধা ঘণ্টা ধরে শুনলেন। (+২০)
 এর ভেতর একবারও টেলিভিশন অন করার কোনো রকম উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। (+৩০০)
 আপনি এক ঘণ্টা ধরে তার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনলেন। (+১০০০)
 এক ঘণ্টা পর সে আপনার নাক ডাকার শব্দ শুনতে পেল। (-২০০০)

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, নভেম্বর ০৯, ২০০৯

 

Top